আর্টিকেল লেখার নিয়ম ও লিখে আয় করার উপায়

কোথায় আর্টিকেল লিখবো, কিভাবে লিখব, লেখায় মনোযোগ ও ধৈর্য্য, পরিপূর্ণ লেখার নিয়ম, আর্টিকেল লিখে আয় করার উপায়, লক্ষণীয় বিষয়, আর্টিকেল লিখে আয়ের ভবিষ্যৎ।

নিজের কোনো ব্লগ কিংবা ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট অথবা জনপ্রিয় কোনো প্লাটফর্মে আর্টিকেল লিখেন অনেকে। কেউ শঁখের বশে আর কেউবা আয়ের উৎস হিসেবে। আপনি কি জানেন? 

আর্টিকেল লেখার নিয়ম ও লিখে আয় করার উপায়

আর্টিকেল লিখে আয় জনপ্রিয় একটি আয়ের উৎস। একটা আর্টিকেল যেমন তথ্যবহুল হলে পাঠকের আকাঙ্ক্ষা নিবারণ করে তেমনি লেখকের আয়ের একটি মাধ্যমও হয়ে ওঠে। তাই লেখক হওয়ার কাজটি অনেকেই করতে চান। অনেকেই আর্টিকেল লিখতে চান। কিভাবে একটি মানসম্মত তথ্যবহুল আর্টিকেল লেখা যায়। আর্টিকেল কি নিয়ে লিখবো, কেমন হবে,  কী কী থাকলে আর্টিকেলটা আরো সুন্দর হবে কিংবা খুব সহজে একটা ব্লগ আর্টিকেল লেখার উপায় কি? এটা নিয়ে অনেকেই জানতে চান। আমি নিশ্চিত আপনিও কিভাবে আর্টিকেল লিখতে হয় সেটা জানার জন্যই এখানে এসেছেন। চলুন দেখে নেয়া যাক সহজে বাংলা আর্টিকেল লেখার কিছু ধাপ-


কোথায় আর্টিকেল লিখবো

আপনাকে যেকোনো একটি মাধ্যম বেছে নিতে হবে যেখানে আপনি আর্টিকেল লিখবেন। প্রথমে আপনার প্রয়োজন একটি ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট।যা আপনি ব্লগস্পট দিয়ে চাইলে ফ্রীতে অথবা হোস্টিং কিনে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন সহজে। ব্লগিং এর জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে ব্লগস্পট অথবা ওয়ার্ডপ্রেস।
যদিও বিনামূল্যের ব্লগসাইটগুলো আপনাকে ব্র‍্যান্ডিং দেয়না কিন্তু লেখার হাত পাকা করা এবং ব্লগিং শুরু করার জন্যে অবশ্যই কাজে দেবে। আর্টিকেল প্রকাশের মাধ্যম হিসেবে এটি আপনাকে কাজে দিবে।

কিভাবে আর্টিকেল লিখবো

আর্টিকেল হলো কোনো একটা বিষয়বস্তু নিয়ে তথ্যবহুল ধারাবাহিক আলোচনা। আপনার কাছে উক্ত বিষয়ে যথেষ্ট তথ্য উপাত্ত থাকতে হবে। একজন পাঠক যা জানতে চায় তার প্রায় সবকিছু আপনার আর্টিকেল এর অন্তর্ভুক্ত হতে হবে। প্রথমত লেখার বিষয়বস্তু  ধারাবাহিক হওয়া অপরিহার্য। লেখার ধারাবাহিকতা রক্ষা করা একটু কঠিন। আমরা বুঝে উঠতে পারিনা লেখাটা কোথায় থেকে শুরু করবো এবং কোথায় গিয়ে শেষ হবে।আর্টিকেল লেখার সময় লেখার ধারাবাহিকতা বজায় রাখা প্রয়োজন। এজন্য যে বিষয়ে লিখবেন তার আগে থেকেই একটি সূচি তৈরি করে নিতে পারেন। আপনি যদি নতুন আর্টিকেল লেখা শুরু করে থাকেন তবে আপনাকে ধারাবাহিকভাবে লিখে যেতে হবে। নিয়মিত বিভিন্ন বিষয়ের আর্টিকেল পড়বেন আর লিখবেন।  লিখতে লিখতেই ভুলক্রুটি চোখে পড়বে। লেখার মান উন্নত হবে।
আর্টিকেল লেখার ক্ষেত্রে প্রাথমিকভাবে, আপনি সন্তোষজনক ফলাফল পাবেন না হয়তো। তবে পরবর্তী পর্যায়ে আপনি এগিয়ে যাওয়ার অনেক পথই খুঁজে পাবেন। সুতরাং, নিশ্চিত হয়ে নিন আপনি যে বিষয়ে আর্টিকেল লিখছেন সে বিষয়ে আপনি যথেষ্ট ধৈর্য নিয়ে সময় দিচ্ছেন কিনা। নিজের প্রচেষ্টা এবং আগ্রহের ধারাবাহিকতা বজায় রাখাও একান্ত জরুরী।

আর্টিকেল লেখায় মনোযোগ ও ধৈর্য্য

আর্টিকেল লেখার ক্ষেত্রে মনোযোগ ও ধৈর্য্য অনেক গুরত্বপূর্ণ বিষয়। এর উপর আপনার লেখার মান নির্ভর করে। যদি মনে করেন কোনোভাবে লিখলেই অনেক টাকা আয় করে ফেলবো, এটা ভুল ধারণা। টাকা অব্যশই আয় হবে তবে সেটা পরিশ্রম ছাড়া সম্ভব না। আপনি যদি একজন সফল আর্টিকেল লেখক হতে চান তবে মনোযোগী  এবং ধৈর্য্যশীল হওয়া শিখতে হবে।
শেখা উন্নতির মূল চাবিকাঠি। আপনি যদি ধৈর্য ধরতে শিখেন তবে নিজের কাজে মনোনিবেশ করতে পারবেন। আপনি নিজেকে উন্নত করতে শিখবেন। এজন্য কি নিয়ে লিখছেন তার জন্য আগে নিজে বিষয়টি ভালোভাবে শিখে নিন যাতে আপনি আপনার পরবর্তী লক্ষ্য অর্জন করতে পারেন।

একটি পরিপূর্ণ আর্টিকেল লেখার নিয়ম

আপনার বিষয়বস্তু অনুসারে পাঠকের জন্য সংক্ষিপ্ত আর্টিকেল লিখতে পারেন। প্রথমত যা নিয়ে লিখবেন তার বিষয়বস্তু নির্ধারণ করুন। এই বিষয়ে যথেষ্ট জ্ঞান আহরণ করুন। একই বিষয়ে অন্যান্যদের আর্টিকেল খুঁজে পড়ে নিন। প্রয়োজনীয় অংশ নোট করে রাখুন। পুরো বিষয়টির একটি ধারাবাহিক সূচি তৈরি করুন। সূচি অথবা উপশিরোনাম বিস্তারিত বিষয়ের উপর প্রশ্ন রাখবেন। কি, কেন, কোথায়, কীভাবে, কখন এরকম ধরণের প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের অল্প অল্প করে উত্তর দিন। ধীরে ধীরে আর্টিকেল আরো বিস্তারিত করে তুলবেন যাতে পাঠক আপনার লেখাটি বুঝতে পারে এবং সেটা কারো কাজে আসে। কারও কাজে আসবে এই কথা মাথায় রেখে আপনাকে আর্টিকেল লিখতে হবে।
ধীরে ধীরে  তুলনায় দীর্ঘতর বিষয়বস্তু নিয়ে লিখুন।যেসব বিষয়ে অনেক বেশি সার্চ হয় তা নিয়ে আর্টিকেল লিখুন। লেখার ক্ষেত্রে শব্দ সংখ্যা যত বেশি হবে আপনার আর্টিকেলটি ততো বেশি সার্চ ইঞ্জিনে র‍্যাংক করার সম্ভাব্যতা বাড়বে। তবে কেবল প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে আর্টিকেল লিখবেন। অপ্রয়োজনীয় কথায় ভরপুর আর্টিকেল পাঠককে বিরক্ত করে তুলে। লেখার ভাষা এমন রাখবেন যাতে পাঠক বিরক্তিবোধ না করেন।

আর্টিকেল লেখার বিষয়বস্তু নির্ধারণ

সহজ উপায়ে প্রাসঙ্গিক তথ্য সরবরাহ করার দিকে মন দিন। পাঠকরা কী পড়তে চায় সে ব্যপারে যদি আপনি জেনে থাকেন তবে আপনার আর্টিকেলের মাধ্যমে তা ভালোভাবে তুলে ধরুন।এতে করে পাঠক আপনার প্রতি সন্তুষ্ট হবে।পাঠক যদি কাঙ্ক্ষিত তথ্য না পায় তাহলে আপনার লেখার প্রতি বিরক্ত হবে।
সুতরাং, নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি পাঠকদের একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে তথ্য দিচ্ছেন যা পড়তে এবং বুঝতে খুব বেশি সময় নিবেনা।

আর্টিকেল লেখার রিসার্চ

বেশি বেশি পড়া এবং রিসার্চ লেখার দক্ষতা বাড়ায়। সেরা আর্টিকেল রাইটাররা কীভাবে কাজ করছে তা ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করুন। একই বিষয়ে অন্যেরা কী লিখেছে কীভাবে লিখেছে রিসার্চ করুন। আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য নোট করে রাখুন যাতে নিজের লেখাকে আরো তথ্যবহুল করতে পারেন।

আর্টিকেল লেখার লক্ষণীয় বিষয়

সরলতা সর্বোত্তম পন্থা। লেখার সময় লেখাটি সহজ সরল ও সহজবোধ্য হয় এদিকে খেয়াল রাখা উচিত।আপনার ভাবনাটি যথেষ্ট সহজভাবে বোঝানোর চেষ্টা করুন।যাতে পাঠক পড়ে বুঝতে পারে আপনি কী নিয়ে লিখছেন এবং সেটা ঠিকমতো বলছেন কিনা।
আপনি যে বিষয়ে আর্টিকেল লিখছেন সে বিষয়ে ছবি কিংবা ভিডিও যুক্ত করবেন। এতে করে পাঠক ছবি বা ভিডিও দেখেই আপনার আর্টিকেলের বিষয়বস্তু বুঝতে পারবে। এতে এক্সট্রা আকর্ষণও তৈরি হয়। ছবি ব্যবহারে সতর্ক থাকবেন। কপিরাইট ফ্রী ছবি অথবা নিজের ডিজাইন করা ছবি ব্যবহার করতে পারেন। পাঠক ছবি দেখে সহজেই আপনার কনটেন্ট  সম্পর্কে ধারণা পাবে এমন ছবি ব্যবহার করবেন।

পাঠক ঠিক কী জানতে চায় সে বিষয়ে ধারণা থাকতে হবে। যা জানতে চায় তা গুছিয়ে লিখুন। আপনাকে লিখতে হবে যতোটুকু পাঠক জানতে চায়, এবং যা জানেনা সেটুকু তুলে ধরতে হবে। এভাবে আপনার আর্টিকেল পূর্ণতা পাবে। একজন আর্টিকেল রাইটার হিসেবে আপনার মুল লক্ষ্য রাখতে হবে তথ্যবহুল আর্টিকেল তৈরি করা।

যেহেতু একই বিষয়ে অনেকেই আর্টিকেল এবং ব্লগ পোস্ট লিখছে, তাই ব্লগে ট্রাফিক নিয়ে আসা আপনার পক্ষে কঠিন হতে পারে। সুতরাং, যে জিনিসটি সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন তা হলো অনন্য বা ইউনিক আর্টিকেল। আপনার আর্টিকেল যতো ইউনিক আর অরিজিনাল হবে ততো সার্চ ইঞ্জিন ভ্যালু পাবে। কী লিখবেন তা ভালোকরে ভেবে দেখুন। লেখায় এমন ধরণের দরকারী তথ্য যুক্ত করুন যা আর্টিকেল পড়তে আকৃষ্ট করবে। আর্টিকেল এ যুক্ত করতে পারেন সমসাময়িক বিষয় কুইজ, প্রতিযোগিতা, ইন্টারেক্টিভ গেমস, ভিডিও এবং অন্যান্য অনেক কিছু।
আপনি যদি সম্পুর্ণ নতুন ধরণের কিছু আনতে পারেন তবে আপনি অবশ্যই ট্রাফিক পাবেন।

আর্টিকেল লিখে আয় করার উপায়

বর্তমান সময়ে আয়ের অন্যতম একটি মাধ্যম হলো আর্টকেল লিখে আয়। অনলাইনে অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে আপনি আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন। এছাড়া আর্টিকেল রাইটার হিসেবে নিজের ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারবেন। আপওয়ার্ক, ফাইভার, ফ্রিল্যান্সার ডটকম ইত্যাদি সাইটে আপনি আর্টিকেল রাইটার হিসেবে কাজ করতে পারেন। অথবা আপনি বৃহৎ শব্দসংখ্যার আর্টিকেল লিখে সেগুলো ভালো দামে বিক্রি করতে পারেন৷ বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করার ওয়েবসাইট আছে অনেকগুলো যারা আপনাকে আর্টিকেল লেখার বিনিময়ে টাকা দিবে। 
বাংলা যেসব ওয়েবসাইট এ আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারেন- 

-বিস্ময় ডটকম
- টেকটিউনস 
- গ্রাথোর
- ইনকাম টিউনস
- অর্ডিনারি আইটি
- জেআইটি
- রোর বাংলা
- প্রতিবর্তন

গুগলে সার্চ করলে এমন আরো অনেক ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন যেখানে বাংলায় আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন। তবে সবচেয়ে ভালো হয় নিজের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিজের জন্য আর্টিকেল লেখা। ভবিষ্যতে নিশ্চয়ই ভালো ফলাফল দিবে এই আর্টিকেল রাইটিং।


Read More: Best Bangla Caption

Getting Info...
Cookie Consent
Dear! We serve cookies to optimize your experience.
Oops!
It seems there is something wrong with your internet connection. Please connect to the internet and start browsing again.
AdBlock Detected!
We have detected that you are using adblocking plugin in your browser.
The revenue we earn by the advertisements is used to manage this website, we request you to whitelist our website in your adblocking plugin.
Site is Blocked
Sorry! This site is not available in your country.