কোনো কিছু সহজে দ্রুত মনে রাখার উপায়

কখনো জানতে চেয়েছেন কিভাবে কিছু দ্রুত এবং সহজে মনে রাখা যায়? চারটি সহজ নিয়ম অবলম্বন করে মনে রাখার কাজটি দ্রুত করতে পারেন।

কোনো কিছু কি দ্রুত সহজে ভুলে যান? মনে রাখতে কষ্ট হয়? কখনো জানতে চেয়েছেন কিভাবে কিছু দ্রুত এবং সহজে মনে রাখা যায়? 

How to memorize anything fast and কোনো কিছু সহজে দ্রুত মনে রাখার উপায়

চারটি সহজ নিয়ম অবলম্বন করে মনে রাখার কাজটি দ্রুত করতে পারেন। আপনাকে চ্যালেঞ্জ করছি এই আর্টিকেলটি পড়ার পর আপনি দ্রুত মনে রাখার আর্ট শিখে যাবেন। যদি শিখতে না চান তবে এখনই পড়া থামিয়ে দিয়ে এড়িয়ে চলুন।

অনেক মানুষ আছে যারা কোনোকিছু দ্রুত এবং সহজে মনে রাখতে পারে। তারা সহজেই নাম, পাঠ্য, সুত্র, তারিখ, ঘটনা এবং কঠিন ধারণাগুলো মনে রাখতে পারে। কখনো ভেবেছেন, তারা কীভাবে এত দ্রুত কিছু মনে রাখতে পারে?

যেকোনো কিছু মনে রাখতে পারা হলো একটা আর্ট। এটা প্রকৃতিপ্রদত্ত কোনো ক্ষমতা নয়, কতগুলো কৌশলের সমষ্টি কেবল। আপনি যদি এই আর্ট বা দক্ষতা রপ্ত করতে পারেন তবে আপনিও অন্যদের চেয়ে আরও ভালভাবে মনে রাখার ক্ষমতা অর্জন কর‍তে পারবেন। একটা বিষয় হলো, কোনো স্কুল বা কলেজ আমাদেরকে দ্রুত এবং সহজে মনে রাখার উপায়টা শেখায় না। এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। তবে আকর্ষণীয় এই আর্টিকেলটি পড়ার পর আপনি দ্রুত মনে রাখার আর্ট আয়ত্ত করতে পারবেন। ব্যক্তিগতভাবে, আমি এটিকে নেমনকোলজি বলি। নেমনকোলজি হলো বিজ্ঞানের একটি ক্ষেত্র নেমোনিক, যেখানে স্মৃতিবিদ্যা ব্যবহার করে মনে রাখার আর্ট রপ্ত করা যায়। 

নেমোনিক কি?

নেমোনিক হলো এমন একটি কৌশল যা দ্রুত কিছু মনে রাখতে সহায়তা করে। নেমোনিক থেকে নেমোনকোলজি। যদি নেমোনকোলজি শব্দের অর্থ বা এর সংজ্ঞা কোনো বই বা অভিধানে খুঁজে না পান তবে চিন্তার কারণ নেই। ব্যক্তিগতভাবে আমি নেমোনকোলজি শব্দটি ব্যবহার করেছি। দেখে নেয়া যাক কিভাবে স্মৃতিশক্তির সর্বোচ্চ ও সর্বোত্তম ব্যবহার করা যায়।

যেকোন কিছু দ্রুত এবং সহজে মনে রাখার চারটি সহজ উপায়

মনে করুন, মাত্রই একটা জনপ্রিয় সিনেমা দেখেছেন। যথারীতি, আপনি হয় সিনেমার প্রতিটি ঘটনা মনে রাখবেন বা আপনি সিনেমার পুরো গল্পটি মনে রাখবেন। আপনি কি কখনও ভেবে দেখেছেন যে আপনি যখনই সিনেমা দেখেন তখনই এই ব্যপারটি ঘটে। কেন এমনটা ঘটে?

উত্তর সহজ। আপনার স্মৃতি দ্রুত এবং সহজে মনে রাখতে ভিজ্যুয়ালাইজ করতে পছন্দ করে৷ যদি স্মৃতির ভিজ্যুয়ালাইজেশনের এই আর্টটি শিখতে পারেন, তবে যেকোনো কিছু দ্রুত মনে রাখা আপনার জন্য সহজ হয়ে যাবে।

কোনোকিছু মনে রাখার জন্য সেলিব্রেটিদের নাম ও ছবির ব্যবহার

ধরুন, আমি পর্যায় সারণির ৪র্থ বা ১৪ তম গ্রুপ মুখস্ত করতে চাই। ঘণ্টার পর ঘণ্টা একই লাইন বারবার না আউড়ে আমি সালমান খানকে কল্পনা করতে পারি। তাকে নিয়ে একটি বাক্য গঠন করতে পারি, যেই বাক্যে মনে রাখার বিষয়টির উপস্থিতি আছে।

 উদাহরণস্বরূপ, আমি বলি,

 "Can Salman Go South Punjab Fast?"

 এখানে,

 C মানে কার্বন।

 S মানে সিলিকন।

 G মানে জার্মেনিয়াম।

 S মানে SN, যা টিনের প্রতীক।

 P মানে PB, যা সিসার প্রতীক।

 F এর অর্থ ফ্লোরভিয়াম। 

এখন আমার স্মৃতি পর্যায় সারণীর 14 তম বা চতুর্থ গ্রুপ সালমান খানের ছবির সাথে সংরক্ষণ করে ফেলেছে। যদি কোনো পরীক্ষায় আমাকে পর্যায় সারণীর 14 তম গ্রুপের উপাদানগুলো মনে করতে বলা হয়, আমি কেবল সালমান খানের কথাই ভাববো। সালমান খানের ওই লাইনটি মনে পড়লে বাকিটা মনে পড়ে যাবে দ্রুত এবং সহজে।

সুতরাং, এইভাবে সেলিব্রেটিদের নাম বা ছবি কল্পনা করে আমি পর্যায় সারণির ১৪তম গ্রুপটি মনে রাখতে পারি। সেলিব্রিটির জায়গায় আপনার প্রিয় কোনো মানুষকেও বসাতে পারেন।

কিছু বা কারো বৈশিষ্ট্যের উদাহরণ থেকে মনে রাখার উপায়

ধরুন, আমি ফিজিক্সের কাজের সূত্র এবং মোমেন্টাম সূত্র শিখতে চাই।

 এখন আমি বলি,

 Men For Duty and Women For Smile.

 এখানে,

 M= F, D, এবং W = F, S.

সুত্র মনে রাখার ক্ষেত্রে এই কৌশলটি দারুণ কাজে দেয়।

পরিবারের সদস্যদের নাম ব্যবহার করে মনে রাখুন সহজে

মনেকরুন, আপনি ফিজিক্সের পজিটিভ প্রেফিক্স তালিকা শিখতে চান। এখানে আপনার বাবার কোনো কর্মকাণ্ডকে মনে করতে পারেন।

যেমন আমি বলি,

 "Dad Has Kept My Gray Tab।"

 এখানে,

 D মানে ডেকা,

 H মানে হেক্টো,

 K মানে কিলো,

 M মানে মেগা,

 G মানে গিগা,

 T মানে টেরা। 

সুতরাং, পরিবারের সদস্যদের কর্মকাণ্ড ও ঘটনা ব্যবহার করে সহজে মনে রাখার কৌশল নির্ণয় করা যেতে পারে। যখন মনে করার প্রয়োজন হবে তখন শুধু ঘটনাটা মনে করলেই পুরো বিষয়টা মনে পড়ে যাবে।

মনের রাখার জন্য কোনো প্রাণির ছবি কল্পনা করা

যদি কেমিস্ট্রির সবগুলো লবণ সম্পর্কে জানতে চাই তখন কী করবো? আমরা জানি লবণের দুটি অংশ থাকে। ধাতব অংশ এবং ঋণাত্মক আয়ন অংশ। লবণের তালিকা মনে রাখার জন্য, আমি একটি বিড়ালের ছবি বিবেচনা করি।

আমি বলি, 

"Cute Cat, So Nice!"

 এখানে,

 C মানে ক্যালসিয়াম, যেমন ক্যালসিয়াম কার্বনেট।

 C মানে ক্লোরাইড, যেমন সোডিয়াম ক্লোরাইড।

 S মানে হল সালফেট, যেমন ম্যাগনেসিয়াম সালফেট।

 N মানে নাইট্রেট, যেমন সোডিয়াম নাইট্রেট।

সুতরাং, এই কৌশলটি ব্যবহার করে, আমরা কেমিস্ট্রির গুরুত্বপূর্ণ সব লবণের তালিকা শিখতে পারি। অনেকেই লবণের এই তালিকাটি মুখস্ত করতে এক ঘন্টার বেশি সময় ব্যয় করে ফেলবে। কিন্তু ছোট্ট কৌশলটি ব্যবহার করে বিষয়টি সহজে এক মিনিটেরও কম সময়ে দ্রুত শেখা ও মনে রাখা যায়।

এতক্ষণে মনে হচ্ছে, ধুর ছাই! এটা কোনো কৌশল হলো? খুবই সহজ টেকনিক। মজার ব্যাপার হয়তো এই সহজ টেকনিকটাই আপনার আগে জানা ছিলো না। যদি আরও কাউকে জানাতে চান শেয়ার করতে পারেন। মতামত, অনুপ্রেরণা ও অভিযোগ জানাতে কমেন্ট করতে পারেন। 

Getting Info...
Cookie Consent
Dear! We serve cookies to optimize your experience.
Oops!
It seems there is something wrong with your internet connection. Please connect to the internet and start browsing again.
AdBlock Detected!
We have detected that you are using adblocking plugin in your browser.
The revenue we earn by the advertisements is used to manage this website, we request you to whitelist our website in your adblocking plugin.
Site is Blocked
Sorry! This site is not available in your country.